দৈনিক নবতান
জনতার সংসদ

BREAKING NEWS

‘সাংস্কৃতিক অঙ্গনে ফকির আলমগীর চিরস্মরণীয় হয়ে থাকবেন’

0

একুশে পদকপ্রাপ্ত কিংবদন্তি গণসংগীতশিল্পী, বীর মুক্তিযোদ্ধা ফকির আলমগীরের মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. মশিউর রহমান।

সাংস্কৃতিক অঙ্গনে ফকির আলমগীর চিরস্মরণীয় হয়ে থাকবেন জানিয়ে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য বলেন, ‘করোনার প্রাদুর্ভাব আরও বহুজনের সঙ্গে বাংলাদেশের এক কীর্তিমান শিল্পীর মৃত্যু ঘটল। তাঁর এই মৃত্যুতে দেশের সাংস্কৃতিক অঙ্গনে এক অপূরণীয় ক্ষতি হয়েছে।’

শনিবার এক শোকবার্তায় উপাচার্য বলেন, ‘বাংলাদেশের ঐতিহাসিক সব আন্দোলনে ফকির আলমগীর তাঁর গানের মাধ্যমে দেশের মানুষকে উজ্জীবিত করেছেন। তিনি ৬৯ এর গণঅভ্যুথান, ১৯৭১ এর মহান মুক্তিযুদ্ধে স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের একজন শব্দ সৈনিক হিসেবে এবং স্বাধীনতা-উত্তর বাংলাদেশে ৯০ এর সামরিক শাসনবিরোধী গণআন্দোলনে সক্রিয় অংশগ্রহণ করেছিলেন। তাঁর এই অবদান প্রজন্ম থেকে প্রজন্মান্তরে গভীর শ্রদ্ধায় চিরস্মরণীয় হয়ে থাকবে। তাঁর এই প্রস্থান বাংলাদেশের সাংস্কৃতিক অঙ্গনে বিশাল শূন্যতা সৃষ্টি হয়েছে, যা অপূরণীয় ক্ষতি।”

উপাচার্য আরও বলেন, ‘ফকির আলমগীর গণসংগীত পরিবেশন ও দেশাত্মবোধক সংগীতে অনন্য ভূমিকা রেখেছেন। তাঁর গান বঞ্চিত, শোষিত ও নিপীড়িত জনগোষ্ঠীকে যেমন মুক্তির আস্বাদনে অনুপ্রেরণা জুগিয়েছে তেমনি তাঁর কণ্ঠে বাংলা ও বাঙালির নিত্যকার হাসি-কান্না, হর্ষ-বিষাদ ও রাগ-অনুরাগের প্রাণবন্ত উপস্থিতি প্রকাশ পেয়েছে। তাঁর সৃষ্টিশীল সব গানের মাঝে এবং এদেশে গণসংগীতের বিকাশ ও উন্নয়নের ধারাবাহিকতায় তিনি আমাদের মাঝে চির অম্লান হয়ে থাকবেন’
ফকির আলমগীরের নিবেদিতপ্রাণ গান এবং মুক্তিযুদ্ধে তাঁর অবদান আগামী প্রজন্মকে জানানোর জন্য উদ্যোগ নেয়া প্রয়োজন বলেও মনে করেন উপাচার্য।

শোকবার্তায় উপাচার্য কিংবদন্তি এই গণসংগীতশিল্পীর বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করেন এবং তাঁর শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান।

Leave A Reply

Your email address will not be published.