দৈনিক নবতান
জনতার সংসদ

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে ৬ আসরে বাংলাদেশ

0

উদ্বোধনী দিনের দ্বিতীয় ম্যাচে স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে এবারের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ মিশন শুরু করছে বাংলাদেশ। অবশ্য টাইগারদের এবার খেলতে হচ্ছে ‘বাছাইপর্ব’। স্কটল্যান্ড ছাড়া গ্রুপ পর্বে বাংলাদেশের অন্য তিন প্রতিপক্ষ ওমান ও পাপুয়া নিউগিনি। এই পর্ব পেরোতে পারলেই সুপার বারোতে যাওয়ার সুযোগ পাবে মাহমুদউল্লাহরা। তার জন্য ‘বি’ গ্রুপে শীর্ষ বা দ্বিতীয় স্থানে থাকতে হবে টাইগারদের। এর আগে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের ছয়বারের আসরে মোট ২৫ ম্যাচ খেলেছে বাংলাদেশ। তার মধ্যে ৫ জয়ের বিপরীতে হেরেছে ১৯ ম্যাচ্। এক ম্যাচ পরিত্যক্ত হয়েছে। তার মধ্যে টাইগাররা আগে ব্যাটিং করেছে ১২ বার এবং পরে ব্যাটিং করেছে ১৩ বার।

সর্বোচ্চ দলীয় স্কোর ১৮০, ওমানের বিপক্ষে (২০১৬ সালে)। একই বছর সর্বনিম্ন ৭০ রানের স্কোর গড়ে তারা নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে নিজেদের ২৫ ম্যাচের সবটিতেই খেলেছেন সাকিব আল হাসান ও মুশফিকুর রহিম। তার মধ্যে সর্বোচ্চ ৫৬৭ রান সাকিবের। সবচেয়ে বেশি ২০ ছক্কা ও সবচেয়ে বেশি ৩০ উইকেটও তার। এক আসরে (২০১৬ সালে) সর্বোচ্চ ১০ উইকেটের রেকর্ডটিও সাকিবের। অবশ্য এই রেকর্ড তিনি ভাগাভাগি করছেন আল-আমিনের সঙ্গে। ২০১৪ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে ১০ উইকেট নেন আল-আমিন। বাংলাদেশি ব্যাটারদের মধ্যে সেরা ইনিংস ১০৩* এবং বেশি ৫২ চার তামিম ইকবালের। সেরা বোলিং (২২ রান দিয়ে ৫ উইকেট) অবশ্য মোস্তাফিজুর রহমানের। সেরা ইকনোমি ৫.৩৩ সাব্বির রহমানের। গ্লাভস হাতে সবচেয়ে ১৯ ডিসমিসাল (১০ ক্যাচ ১০ ও ৯ স্টাম্পিং) মুশফিকের। এছাড়া ফিল্ডিংয়ে সর্বোচ্চ ৮ ক্যাচ নিয়েছেন মাহমুদউল্লাহ।

Leave A Reply

Your email address will not be published.