দৈনিক নবতান
জনতার সংসদ

BREAKING NEWS

ধনবাড়ীতে বিয়ের দাবিতে সপ্তম শ্রেণির ছাত্রীর অনশন

0

ধনবাড়ী (টাংগাইল) প্রতিনিধি

নবম শ্রেণি পড়ুয়া প্রেমিকের বাড়িতে অনশনে বসেছে একই স্কুলের সপ্তম শ্রেণির আরেক ছাত্রী। শনিবার (৩০ জুলাই) থেকে এ অনশনে বসে ওই কিশোরী।

অনশনের খবরে প্রেমিক মো. রনি আহমেদ বাড়ি থেকে পালিয়ে গেছে। ঘটনা টাঙ্গাইলের ধনবাড়ী উপজেলায়। তাঁরা উভয়ই মুশুদ্দি আফাজ উদ্দিন উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী। ঘটনাটি প্রভাবশালী মহল টাকার বিনিময়ে ধামাচাপা দিতে মরিয়া হয়ে উঠেছে বলে জানান স্থানীয়রা।

ওই কিশোরী বলেন, রনি দেড় বছর আগে আমাকে প্রেমের প্রস্তাব দিতে থাকলে এক সময় প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠলে স্কুলে যাওয়া-আসার পথে বিয়ের প্রলোভনে কু-প্রস্তাত দিতে থাকে। একপর্যায়ে বিয়ে করার কথা বলে আমার সাথে শারীরিক সম্পর্ক গড়ে তুলে। বিয়ের চাপ দিলে নানান তালবাহানা করে প্রতারণা শুরু করে।

ওই ভোক্তভূগী কিশোরী আরও বলেন, ‘আমার তো সব শেষ করেছে রনি। বিয়ে না করলে আমার কি গতি হবে। এখন তো আমাকে অন্য কেউ আর বিয়ে করবো না। বিয়ের দাবিতে ওদের বাড়িতে এসেছি। ওর পরিবারের লোকজন রনিকে বাড়ি থেকে ভাগিয়ে দিয়েছে। যদি বিয়ে না করে আত্মহত্যা ছাড়া আমার কোন আর উপায় নাই। এ বাড়ি থেকে আমার লাশ নিয়ে যেতে হবে।’

ওই কিশোরীর বাবা জানান, ‘সপ্তম শ্রেণি পড়ু__য়া আমার অবুঝ মেয়েকে বিয়ের কথা বলে সর্বনাশ করেছে। আমরা গরীব মানুষ। এর সুষ্ঠু সমাধান চাই।’

প্রেমিকের বাবা আ. ছাত্তার বলেন, ‘আমার ছেলে বাড়িতে নাই। ছেলে বাড়িতে আসলে ব্যবস্থা নেয়া হবে। মেয়েটি আমার বাড়িতেই থাকুক।’

স্থানীয় মাতাব্বর মিলটন মিয়া জানান, ‘বিয়ের প্রলোভনে ওই ছেলে মেয়েটির সাথে শারীরিক সম্পর্ক গড়ে তুলে। মেয়েটি বিয়ের চাপ দিলে ছেলে বিয়ে করতে অস্বীকার করলে মেয়েটি বিষপানে আত্মহত্যার চেষ্টা চালায়। পরবর্তীতে বিয়ের দাবিতে গত শনিবার হতে প্রেমিকের বাড়িতে অবস্থান করে অনশন করেছে।’

ওই বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সাইফুল ইসলাম এ বিষয়ে এখনো কিছু জানেন না বলে জানান। স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান আবু কাউসার বলেন, ‘ঘটনাটি আমি জেনেছি। আজ রোববার (৩১ জুলাই) রাত্রে ফয়সালা করা হবে।’

ধনবাড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. চান মিয়া বলেন, ‘বিষয়টি আমার জানা নেই। কেউ অভিযোগ করেনি।’

Leave A Reply

Your email address will not be published.