দৈনিক নবতান
জনতার সংসদ

পুকুর সংস্কারের উদ্দ্যেগ গ্রহন করায় প্রশংসিত পিংনা ইউনিয়ন পরিষদ

0


স্টাফ রিপোটারঃ শত বছরের ঐতিহ্যবাহি ভরাট প্রায় অন্ধ পুকুরটি সংস্কারের উদ্দ্যেগ গ্রহন করায় এলাকাবাসীর কাছে প্রশংসিত হয়েছেন পিংনা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও পিংনা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ্ব ডাঃ নজরুল ইসলাম ও তার অধীন সংরক্ষিত মহিলা সদস্য ও সাধারন ইউপি সদস্যগন। জামালপুরের সরিষাবাড়ী উপজেলার পিংনা ইউনিয়নের বাশুরিয়া মৌজার ১.৪০ একর ভুমিতে শত বছরের কালের স্বাক্ষী বহনকারী এ পুকুরটি। বুধবার (১০ মে) দুপুরে সরিষাবাড়ী উপজেলার পিংনা ইউনিয়নের নরপাড়া গ্রামে সরেজমিনে গিয়ে এ সব তথ্য জানা গেছে।
পিংনা ইউনিয়ন পরিষদ সুত্রে জানা গেছে, সরিষাবাড়ী উপজেলার পিংনা ইউনিয়নের বাশুরিয়া মৌজার ১.৪০ একর ভুমিতে শত বছরের কালের স্বাক্ষী বহনকারী এ পুকুরটিতে এক সময় সনাতন ধর্মালম্বীদের বড় উৎসব দুর্গাপূজার দেবীকে বির্সজন দিত। স্থানীয় এলাকাবাসী নারী/পুরুষ বিভিন্ন বয়সীরা গোসল করা সহ গরু-মহিষ ও এলাকায় অগ্নী নির্বাপনের পানির উৎস ছিল এ পুকুরটি। কালের আর্বতে হারিয়ে যেতে বসেছে এ পুকুটি। এমতাবস্থায় বিভিন্ন জনপ্রতিনিধি নির্বাচিত হলেও কেউ আশুদৃষ্টি দেয়নি পুকুরটির ঐতিহ্য ফিরাতে। বর্তমান পিংনা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও পিংনা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ্ব ডাঃ নজরুল ইসলাম ও তার অধীন সংরক্ষিত মহিলা সদস্য ও সাধারন ইউপি সদস্যগনের ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় চলছে পুকুরের পাড়, পুকুরের উত্তরপার্শ্বে ও দক্ষিন পার্শ্বে দুটি ঘাট সহ পুকুরটির খনন করে মৎস্য চাষের উপযোগী হলে ইউনিয়ন পরিষদের আয় বৃদ্ধি সহ স্থানীয় ভাবে মাছের চাহিদা পুরন করার পাশাপাশি বঙ্গবন্ধু কণ্যা দেশনেএী শেখ হাসিনা’র উন্নয়নের পাশে দাড়াবার এটি একটি ক্ষুদ্র প্রয়াস বলে মন্তব্য করেছেন পিংনা ইউপি ৭ নং ওয়ার্ডের সদস্য খসরু মিয়া। তিনি স্থানীয় জনগনের আন্তরিক সহযোগীতা ও আশুদৃষ্টি কামনা করেছেন।
এ সময় পিংনা ইউনিয়ন তাতী লীগের সভাপতি আখতারুজ্জামান, পিংনা ইউনিয়ন ১নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য জাহিদুল ইসলাম আক্তার, ২নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য জামাল উদ্দিন সহ স্থানীয়রা উপস্থিত ছিলেন।
এ ব্যপারে পিংনা ইউনিয়নের পদ্মপুর গ্রামের বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুস সামাদ জানান, নরপাড়া গ্রামের ভরাট প্রায় এ পুকুরটি সংস্কারের উদ্দ্যেগ গ্রহন করায় পিংনা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ডাঃ নজরুল ইসলাম ও তার অধীন সংরক্ষিত মহিলা সদস্য ও সাধারন ইউপি সদস্যগনকে স্বাগত জানাই। এ পুকুরটি সংস্কারের মাধ্যমে সচল করা হলে এটির ঐতিহ্য ফিরে পাবে এবং এলাকাবাসী উপকৃত হবে। আমি এ এলাকার সকলের কাছে সহযোগীতা কামনা করছি যাতে পুকুরটি সুন্দর ভাবে পুর্বের মত প্রান ফিরানো যায়।

Leave A Reply

Your email address will not be published.