দৈনিক নবতান
জনতার সংসদ

দুই বছর ধরে আমেরিকায় বন্যা মির্জা, সেখানে কী

0

ছোটপর্দায় একসময় নিয়মিত কাজ করতেন বন্যা মির্জা। এসেছিলেন মঞ্চ থেকে। ঢাকার নাট্যদল দেশ নাটকের নিয়মিত শিল্পী তিনি। তবে গত বছর দলটির নতুন প্রযোজনা ‘জলবাসর’ নাটকটির একটি প্রদর্শনী বন্যাকে ছাড়াই হয়। পাশাপাশি টিভি নাটকেও তার দেখা মিলছে না।

কোথায় কী করছেন বন্যা মির্জা?

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, দুই বছর ধরে আমেরিকায় রয়েছেন এই অভিনেত্রী। সেখানে তিনি স্থায়ীভাবে বসবাসের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। সে লক্ষ্যেই দেশটিতে অবস্থান করছেন। বর্তমানে তিনি যুক্তরাষ্ট্রে একটি করপোরেট প্রতিষ্ঠানে চাকরিও করছেন।

সত্যতা জানতে সামাজিক মাধ্যমে যোগাযোগ করা হয় বন্যা মির্জার সঙ্গে। তিনি ঢাকা টাইমসকে বলেন, ‘হ্যাঁ, দুই বছর ধরে আমেরিকায় আছি। এখানে স্থায়ী হওয়ার চিন্তাভাবনা আছে।’

চাকরি প্রসঙ্গে অভিনেত্রী বলেন, ‘চাকরি তো দেশে থাকতেও করেছি। একটি অনলাইন নিউজ পেপারের মার্কেটিং বিভাগে ছিলাম। আর আমেরিকায় তো বসে থাকার সুযোগ নেই। এখানে কোনো না কোনো কাজের সঙ্গে যুক্ত থাকতে হয়। কারণ জীবনযাপন ব্যয় অনেক বেশি। এখানে আসার পর থেকেই চাকরি করছি। ভালোই লাগছে।’

বন্যা আরও বলেন, ‘বিদেশে থাকলে দেশের টান অনুভব করা যায়। সবার কাছে দোয়া চাই, যেন সুস্থভাবে জীবনযাপন করতে পারি।’

টিভিতে প্রচারিত ‘রঙের মানুষ’ ও ‘ভবের হাট’সহ বেশ কিছু দর্শকপ্রিয় ধারাবাহিক ও একক নাটক দিয়ে আলোচনায় এসেছিলেন বন্যা মির্জা। পাঁচটি সিনেমায়ও তাকে দেখা গেছে। সেগুলো হলো- ‘হেডমাস্টার’, ‘শরৎ ৭১’, ‘রাবেয়া’, ‘খ-চিত্র ৭১’ এবং ‘পিতা’।

মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সন্তান বন্যা মির্জার জন্ম ১৯৭৫ সালের ৯ সেপ্টেম্বর কুষ্টিয়ায়। তার বাবা মির্জা ফারুক একজন বীর মুক্তিযোদ্ধা এবং পরিবার পরিকল্পনা পরিদপ্তরের অবসরপ্রাপ্ত পরিচালক। মা খুরশিদা আক্তার একজন গৃহিণী। দম্পতির চার মেয়ের মধ্যে বন্যা মির্জা দ্বিতীয়।

Leave A Reply

Your email address will not be published.