দৈনিক নবতান
জনতার সংসদ

BREAKING NEWS

মিথ্যাচারের প্রতিবাদকারী কে মারধর অফিসের আসবাবপত্র ভাংচুর ও লাখ টাকা লুটের থানায় অভিযোগ

0

স্টাফ  রিপোর্টার::জামালপুরের সরিষাবাড়ীতে মিথ্যাচারের প্রতিবাদকারী কে মারধর সহ বিআরটিসি ও জয়ন্তী ট্রাভেলস কাউন্টারের আসবাবপত্র ভাংচুর ও অফিসের রক্ষিত এক লক্ষ টাকা লুটের থানায় অভিযোগ দিয়েছেন জাহাঙ্গীর আলম নামে এক ভুক্তভোগী। শুক্রবার (৫ এপ্রিল) সরিষাবাড়ী পৌর সভার বাউসী পপুলার মোড় মুক্তিযোদ্ধা স্বরণী মোড়ে বিআরটিসি ও জয়ন্তী ট্রাভেলস কাউন্টারের আসবাবপত্র ভাংচুর ও অফিসের রক্ষিত এক লক্ষ টাকা লুটের ঘটনা ইফতার পরবর্তী সময়ে এ ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় সরিষাবাড়ী থানায় পাল্টা পাল্টি অভিযোগ দায়ের করেছেন।
স্থানীয় ও ভুক্তভোগী পরিবার সুত্রে জানা গেছে, সরিষাবাড়ী পৌর সভার বাউসী পপুলার মোড় মুক্তিযোদ্ধা স্বরণী মোড়ে বিআরটিসি ও জয়ন্তী ট্রাভেলস কাউন্টারে সরিষাবাড়ী নির্বাহী প্রকৌশলীর কার্যালয় বিদ্যুৎ বিক্রয় ও বিতরণ কেন্দ্রের ফোর ম্যান এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী স্থানীয় সংসদ সদস্য আব্দুর রশীদ এমপি’র বিদ্যুৎ প্রতিনিধি জাহাঙ্গীর আলম তার চাচাত বোন কে নিয়ে ইফতার করছেন। এমন সময় সরিষাবাড়ী পৌর সভার ইজারাপাড়া গ্রামের আলী আকবর এর ছেলে জুয়েল মিয়া জাহাঙ্গীর আলম তার চাচাত বোনকে নিয়ে ইফতার করার বিষয়টি স্থানীয় লোকজনের মধ্যে প্রপাগান্ডা ছড়ায়। এ বিষয়টি জাহাঙ্গীর জানতে পেয়ে জুয়েল মিয়াকে ডেকে নিয়ে মোড়েই জিজ্ঞাসাবাদ করার একপর্যায়ে কোন ব্যাক্তির বিরুদ্ধে মিথ্যা রটনা রটনা থেকে বিরত থাকার কথা বলে। এ নিয়ে জাহাঙ্গীর ও জুয়েল খান এর মধ্যে বাকবিতন্ডার এক পর্যায়ে দু জনের মধ্যে হাতাহাতি হলে দৃষ্টি প্রতিবন্ধী জুয়েল খান আহত হয়। পরে জুয়েল কে সরিষাবাড়ী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্্ের ভর্তি করা হয়।
এ ব্যাপারে ভুক্তভোগী জাহাঙ্গীর আলম অভিযোগ করে বলেন, জুয়েল খান ও তার কয়েকজন সহযোগী আমার বিরুদ্ধে বিভিন্ন সময় মিথ্যা রটনা রটিয়ে ঝগড়া ফেসাদ করার জন্য উদ্যত হলে আমি সহনশীল ভাবে চলাচল করি। এর পরেও গত শুক্রবার (৪ এপ্রিল) আমার অফিসে আমার চাচাত বোনের সাথে ইফতার করা নিয়ে আমার বিরুদ্ধে মিথ্যাচার করে আমি এর প্রতিবাদ করি।এ প্রতিবাদের জের ধরে আমার বিআরটিসি ও জয়ন্তী ট্রাভেলস কাউন্টারের আসবাবপত্র ভাংচুর ও অফিসের রক্ষিত এক লক্ষ টাকা লুট করে নিয়ে যায় এবং আমাকে মারপিট করে জুয়েল খান ও তার ১০/১২ জন সহযোগীরা। ঘটনার বিচার চেয়ে আমি সরিষাবাড়ী থানায় অভিযোগ করেছি। আমি প্রশাসনের কাছে বিচার চাই।
জানতে চাইলে অভিযুক্ত জুয়েল খান এর পিতা আকবর আলী খান জানান, আমার নিজের ঘরটি ৭’শ টাকায় ভাড়া দিয়েছি। ওই অফিস ঘরে জাহাঙ্গীর আলম নারী এনে অসামাজিক কার্যকলাপ করায় এর প্রতিবাদ করে আমার ছেলে জুয়েল খান। এ নিয়ে আমার ছেলেকে ডেকে নিয়ে কে ঘুষি মেরে রক্তাক্ত করার ফলে হাসপাতালে ভর্তি করিয়েছি। এ ঘটনাকে আড়াল করতে আমার ছেলের বিরুদ্ধে অফিসের আসবাবপত্র ভাংচুর ও অফিসের রক্ষিত এক লক্ষ টাকা লুট করার মিথ্যা অভিযোগ করছে। তিনি আরও বলেন,আমার ছেলে ওই অফিসের আসবাবপত্র ভাংচুর ও টাকা লুট করেনি। অফিসের আসবাবপত্র অফিসের বাহিরে এনে জাহাঙ্গীর নিজেই ভাংচুর করেছে বলে প্রত্যক্ষ দর্শী আলম খান ও সুজল ঘটনা প্রত্যক্ষ করেছেন। এ ঘটনায় থানায় অভিযোগ দায়ের করেছি। আমি এর বিচার চাই।
এ ব্যাপারে সরিষাবাড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ মুশফিকুর রহমান জানান, এ ঘটনায় উভয় পক্ষ লিখিত অভিযোগ দিয়েছে। ঘটনা তদন্ত করে দোষীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যাবস্থা গ্রহন করা হবে।

Leave A Reply

Your email address will not be published.