দৈনিক নবতান
জনতার সংসদ

চাঁপাইনবাবগঞ্জে চোর সন্দেহে যুবককে পেটালেন ইউপি চেয়ারম্যান টিপু

0

চাঁপাইনবাবগঞ্জে সাইকেল চোর সন্দেহে বাজার থেকে এক যুবককে উঠিয়ে নিয়ে গিয়ে চেয়ারম্যানের নিজেস্ব ঘরে বেধড়ক পেটালেন ইউপি চেয়ারম্যান শাহীদ রানা টিপু। এ ঘটনাটি ঘটেছে চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর উপজেলার ১২নং চরবাগডাঙ্গা ইউনিয়ন পরিষদে। তবে ওই যুবক সাইকেল চুরি করেনি বলে জানান। স্থানীয়রা এ ঘটনাকে ন্যাক্কারজনক বলে শাস্তির দাবি করেন।

তবে ইউপি চেয়ারম্যানের দাবি, সাইকেল চুরি যাওয়া ব্যক্তিদের শান্তনা দেয়ার জন্য এটা করা হয়েছে।

স্থানীয় প্রশাসন বলছে, অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

জানা গেছে, সাইকেল চুরির অপরাধে চরবাগডাঙ্গার স্থানীয় বাজার থেকে পাশের ইউনিয়ন শাহজাহানপুরে বিলকান্ধী গ্রামের শহিদুল ইসলাম নামে একজনকে উঠিয়ে নিয়ে এসে পা বেঁধে গলায় গামছা পেচিয়ে গ্রাম পুলিশের লাঠি দিয়ে নির্মমভাবে পিটিয়ে নির্যাতন করা হয়। গত ১৭ অক্টোবর বিকালে সদর উপজেলার ১২নং চরবাগডাঙ্গা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান শাহীদ রানা টিপু এ ঘটনাটি ঘটিয়েছেন।

ভুক্তভোগী শহিদুল ইসলাম জানান, চরবাগডাঙ্গা বাজারে একটি সাইকেলে ধাক্কা লাগলে সাইকেলটি পড়ে যায়। পরে সাইকেলটি তুলতে গেলে স্থানীয় লোকজন চোর সন্দেহে ধরে মারধর করে শুরু করে। একপর্যায়ে ইউনিয়নের পরিষদের চেয়ারম্যানের নিজস্ব ঘরে নিয়ে গিয়ে চেয়ারম্যানের কয়েকজন সহযোগী পা বেঁধে, হাত ধরে থেকে গলায় গামছা পেচিয়ে গ্রাম পুলিশের লাঠি দিয়ে টিপু চেয়ারম্যান এলোপাথারি মারা শুরু করেন এবং মারতে মারতে মেরেই ফেলার কথাও বলেন।

ভুক্তভোগী শহিদুলের বড় ভাই সিরাজুল জানান, আমার ভাই চরবাগডাঙ্গায় চুরি করতে গেছে কিনা জানি না। তবে ইউনিয়ন পরিষদে নিয়ে গিয়ে চেয়ারম্যান পিটিয়েছেন। এটা সঠিক হলে সঠিক আর সঠিক না হলে আমরা আইনের কাছে বিচার চাই।

১২নং চরবাগডাঙ্গা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান শাহীদ রানা টিপুর দাবি, সাইকেল চুরি যাওয়া ব্যক্তিদের শান্তনা দেয়ার জন্য এমন কাজটি করা হয়েছে।

সদর উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা ইফফাত জাহান জানান, বিষয়টি জানা নেই। এ বিষয়ে এখন পর্যন্ত কোন অভিযোগ পাওয়া যায়নি। অভিযোগের পর সত্যতা পেলে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের আশ্বাস দেন।

Leave A Reply

Your email address will not be published.