দৈনিক নবতান
জনতার সংসদ

গোপালপুরে সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতা ও বৃত্তিপ্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের সংবর্ধনা

0

 

মো. সেলিম হোসেন,  নিজস্ব প্রতিবেদক গোপালপুর টাংগাইল

টাঙ্গাইলের গোপালপুরে বার্ষিক সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতা ও বৃত্তিপ্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের সংবর্ধনা দেওয়া হয়েছে। শনিবার সকালে পৌরশহরের স্বাধীনতা কমপ্লেক্স মিলনায়তনে লাইটহাউস ল্যাবরেটরি স্কুল ও হেরার আলো মডেল মাদরাসা এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করেন। বিশ্বে হবো সেরা জাতি নিজকে প্রথম গড়বো খাঁটি প্রতিপাদ্যে অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন লাইটহাউস ল্যাবরেটরি স্কুলের চেয়ারম্যান ড. আতাউর রহমান। স্কুলের অধ্যক্ষ মো. হাবিবুর রহমান তালুকদার জানান, একাধিকবার স্বর্ণপদকপ্রাপ্ত লাইটহাউস ল্যাবরেটরি স্কুলটি ২০০৪সালে প্রতিষ্ঠিত হয়। গোপালপুর উপজেলা কিন্ডারগার্টেন এসোসিয়েশনের বৃত্তি পরীক্ষায় বরাবরই প্রথম স্থান অর্জন করার পাশাপাশি এটি শ্রেষ্ঠ প্রতিষ্ঠান হিসাবে ১৭বার পুরস্কার পেয়েছে।

২০২২সালে অনুষ্ঠিত বৃত্তি পরীক্ষায় ২০০ প্রতিযোগির মধ্যে এ প্রতিষ্ঠান থেকে প্রাথমিক (সরকারি বৃত্তি) ট্যালেন্টপুলে ১৮জন, সাধারণ গ্রেডে ১২জনসহ মোট ৩০ জন, টাঙ্গাইল কিন্ডারগার্টেন এসোসিয়েশনের বৃত্তি পরীক্ষায় জেলা টেলেন্টপুল ১০জন, উপজেলা ট্যালেন্টপুল ৭জন ও সাধারণ ট্যালেন্টপুল ৩৪জনসহ মোট ৫১ জন, ঘাটাইল ক্লাব শিশু বৃত্তিতে ৩৩জন, হেরার আলো মডেল মাদরাসা ও ইকরা শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ঘাটাইল এর বৃত্তি পরীক্ষায় ট্যালেন্টপুল ২ জন ও এ গ্রেড ৭জনসহ মোট ৯ জন বৃত্তি পেয়েছে।

প্রতিষ্ঠানের চেয়ারম্যান ড. আতাউর রহমান বলেন, লাইটহাউসের বয়স আজকে পর্যন্ত ২২ বছর ৪ মাস ২০ দিন। এ দীর্ঘ সময়ে আমরা গোপালপুরে শিক্ষার মান ও শিক্ষা বান্ধব পরিবেশ সৃষ্টিতে সর্বতোভাবে চেষ্টা করে যাচ্ছি। এই চেষ্টায় আপনাদের আন্তরিকতা ভালোবাসা ও নিরন্তর সহযোগিতা আমাদেরকে সমৃদ্ধ করেছে ও করবে ইনশাআল্লাহ। শিক্ষার মান উন্নয়নে সহশিক্ষা কার্যক্রমের অংশ হিসেবে আজকের সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান খুবই গুরুত্বপূর্ণ। কালচার শুধু গান-বাজনা নাটক সিনেমা ও ললিত কলাই নয় বরং জীবনকে যা পরিশিলীত, পরিমার্জিত ও সুন্দর করে তাই কালচার। যেমন একজন কৃষক জমি থেকে আগাছা সাফ করে তারপরে ফসল ফলায়, তেমনি আমরা আমাদের জীবন থেকে আগাছা নামক সকল প্রকার অনাচার, অবিচার ও সকল প্রকার নোংরামী দূর করে জীবন কে করতে চাই পরিশুদ্ধ। সংস্কৃতি সংস্কার থেকে ক্ষয়প্রাপ্ত বা ভেঙে যাওয়া বস্তুকে পরিমার্জিত করা। আমাদের জীবনে তৈরি হওয়া সকল প্রকার দুর্বৃত্তায়ন ও কুসংস্কার গুলো সংস্কার করে সুন্দর সুনাগরিক হতে চাই, সুসভ্য জাতি হিসেবে নিজে দেরকে পরিচিত করাতে চাই বিশ্বের দরবারে। সংস্কৃতির আরবী প্রতিশব্দ ছাকাফাহ ও তাহযীব। সকল প্রকার বিকৃতি ও বক্রতা দুর করে নিজেদের এবং আমাদের পরিবেশকে সফল করার নাম সাকাফাহ। এভাবে জীবন গঠনের মধ্যে সংস্কৃতির মর্ম খুঁজে পাওয়া যায়। লাইটহাউস ও হেরার আলো এমনটিই চায়। যেখানে শুধুই পরিশুদ্ধ জীবনের আলো লক্ষ্য করা যায়। দ্বিতীয় পর্যায়ে আমাদের বৃত্তিপ্রাপ্ত সেরা ছাত্র-ছাত্রীদের সংবর্ধনায় ওদেরকে রজনীগন্ধার স্টিক দিয়ে সংবর্ধনা জানাই। ফুলের গন্ধ যেমন পুতপবিত্র এবং ছড়িয়ে পরে দিকবিদিক ঠিক তেমনি আমাদের এসব ছাত্রছাত্রীরা সৎ ও যোগ্যতার সাথে সারা দেশকে আলোকিত করুক এ প্রত্যাশা মহান আল্লাহ তায়ালার দরবারে। অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন অধ্যক্ষ মু. হাবিবুর রহমান, আহ্বায়ক শফিকুর রহমান, পৌর কাউন্সিলর মোঃ মঈন উদ্দিন বাবু প্রমূখ। এ সময় প্রতিষ্ঠান পরিচালনা পরিষদের সদস্য, অভিভাবক বৃন্দ, সকল শিক্ষক ও বৃত্তিপ্রাপ্ত শিক্ষার্থীসহ গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

 

Leave A Reply

Your email address will not be published.